১৭ জানুয়ারি ২০১৯ ২:২৯:৫৬
logo
logo banner
HeadLine
বিশ্বের বৃহত্তম দোসা বানালেন চেন্নাইয়ের একদল রাঁধুনি * কমোডের চেয়েও বেশি জীবাণু স্মার্টফোনে! * সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু * অস্থির বাজারেও চালের দাম কমছে খাতুনগঞ্জে * ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নবম ওয়েজবোর্ডের প্রজ্ঞাপন জারি: তথ্যমন্ত্রী * মালিক-শ্রমিক-সরকার ত্রিপক্ষীয় বৈঠক, ৬ গ্রেডে বেতন বাড়ল পোশাকশ্রমিকদের * দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে: প্রধানমন্ত্রী * সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গারা, কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে এলাকা আটকানোর পরিকল্পনা * গণতন্ত্রের স্বার্থে সংসদে আসা উচিত : প্রধানমন্ত্রী * নতুন সরকার ও দল শক্তিশালী করতে করণীয় নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আজ প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক * আগামী ৫ দিন দেশব্যাপী বইবে মৃদু থেকে মাঝারী শৈত্যপ্রবাহ থাকবে কুয়াশাও * ওরা যেন আর ফিরে না আসে - নির্বাচনে অগ্নিসন্ত্রাসীদের প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী * জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভা সদস্যদের শ্রদ্ধা * আজ জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস * পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ অব্যাহত, অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ, বিজিবি মোতায়েন * একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসছে ৩০ জানুয়ারি * সন্দ্বীপে গুলিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী কালা মনির নিহত * নতুন বাংলাদেশ গড়তে দৃঢ় প্রত্যয়ী প্রধানমন্ত্রী * ৮৭ হাজার গ্রামকে উন্নয়নের মূল ধারায় আনার লক্ষ্যেই সোয়া ৫ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষনার প্রস্তুতি * শপথ নিলেন মন্ত্রিপরিষদের ৪৭ সদস্য * চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হলেন শেখ হাসিনা * বাংলাদেশ পুরো বিশ্বে সফল দেশ হিসেবে পরিচিত - হর্ষবর্ধন শ্রিংলা * ঐক্যফ্রন্ট কি মরিয়া প্রমাণ করিবে, মরে নাই? * কাল শপথ নিচ্ছেন ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও ৩ উপমন্ত্রী * বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ * কাল শপথ, কারা আসছেন নতুন মন্ত্রীসভায়? * 'এমন জীবন তুমি করিবে গঠন, মরণে হাসিবে তুমি কাঁদিবে ভুবন' * এপির বিশ্লেষণ : নির্ভার শেখ হাসিনা, নেপথ্যে আন্তর্জাতিক সমর্থন * এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টিই বসছে বিরোধী দলে * সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যু : রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পীকার, ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপির শোক; লাশ আসছে কাল *
     02,2018 Tuesday at 15:30:55 Share

ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্প ও সুনামিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১২৩৪

ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্প ও সুনামিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১২৩৪

ভয়াবহ ভূমিকম্প ও সুনামিতে বিধ্বস্ত ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১,২৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে।


মঙ্গলবার দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।


এর আগে মৃতের সংখ্যা ৮৪৪ জন বলে জানানো হয়েছিল।


শুক্রবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ৭ দশমিক ৫ মাত্রার একটি ভূমিকম্পে সৃষ্ট সুনামি ছয় মিটার উঁচু ঢেউ নিয়ে সুলাওয়েসির পশ্চিম উপকূলের পালু শহরে আঘাত হানে। জোড়া এই প্রাকৃতিক দুর্যোগে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি বহু লোক প্রাণ হারায়।


এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার মুখপাত্র সুতোপো পুরও নুগ্রোহো বলেছেন, “দুপুর ১টা পর্যন্ত ১,২৩৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।”


মঙ্গলবার পালুর নিকটবর্তী সিগি বিরোমারুতে একটি গির্জায় কাদার স্রোতের নিচে চাপা পড়া ৩৪ ইন্দোনেশীয় শিক্ষার্থীর লাশ পাওয়া যায়।


এরা সবাই জনোগি গির্জার বাইবেল ক্যাম্প থেকে নিখোঁজ বলে কথিত ৮৬ শিক্ষার্থীর একটি দলের সদস্য। এদের মধ্যে বাকি ৫২ শিক্ষার্থীর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।


নিহত শিক্ষার্থীদের পরিচয় ও তাদের বয়স শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে ইন্দোনেশীয় রেডক্রসের এক কর্মকর্তা।


ধসে পড়া রোয়া রোয়া হোটেলের ভিতরে প্রায় ৫০ লোক ছিল বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। এদের মধ্যে মাত্র তিন জন জীবিত অবস্থায় বের হয়ে আসতে পেরেছেন। ১২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, কিন্তু বাকিদের কোনো খোঁজ নেই।


উদ্ধারকারীরা এখনও অনেক ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় পৌঁছতে পারেননি। তারা ওই এলাকাগুলোতে পৌঁছানোর পর মৃতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।


অনেক জীবিত এখনও ভবনগুলোর ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপ পড়ে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


ভূমিকম্প ও সুনামির ধ্বংসযজ্ঞের পর পালুর লোকজন ত্রাণের জন্য বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। শহরটিতে পানি, খাবার ও জ্বালানির অভাব দেখা দিয়েছে। সড়ক যোগাযোগ ভেঙে পড়ায় এসব সরবরাহ শহরটি পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে।


পালুর সমস্ত সাধারণ নাগরিক সুবিধা ভেঙে পড়ায় বাসিন্দারা জ্বালানি, খাবার পানি ও খ্যাদের খোঁজে হন্যে হয়ে উঠেছে। স্থানীয়রা অক্ষত দোকানগুলোর সামনে ভিড় করায় লুটপাটের আশঙ্কায় সেখানে সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


পালুতে অবস্থান করা বিবিসির প্রতিনিধি জোনাথন হেড ছোট একটি দোকান থেকে মালামাল নিয়ে যাওয়ার চেষ্টারত জনতাকে সতর্ক করতে পুলিশকে ফাঁকা গুলি করতে দেখেছেন।


একটি দোকানের সামনে ভিড় বাড়তে থাকায় পুলিশ চিৎকার করে সবাইকে পেছনে সরে যেতে বলে, এরপর কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে ও কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে। জনতার মধ্যে কয়েকজন পুলিশের দিকে পাথর ছুড়ে মারে।


পরে পুলিশ জনতাকে ওই দোকানে প্রবেশ করে খাদ্যপণ্য নিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেয়। তবে খাবারের বাইরে অন্যান্য পণ্য যেন না নিতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখে বলে জানিয়েছেন বিবিসির প্রতিনিধি।

User Comments

  • আন্তর্জাতিক