২৫ মে ২০২০ ১৩:৩৩:০০
logo
logo banner
HeadLine
আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা * করোনায় মারা গেলেন এনএসআই কর্মকর্তা সন্দ্বীপের নাছির উদ্দিন * সন্দ্বীপবাসীকে পবিত্র ইদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন মেয়র * ২৪ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৫৩২, মৃত ২৮ * করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত চলবে সরকারি সহায়তা, জীবন-জীবিকার স্বার্থে চালু করতে হবে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড - প্রধানমন্ত্রী * সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা * ২৩ মে : চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১৬৬ * করোনাকালীন সঙ্কটে পড়া সন্দ্বীপ পৌরসভার কর্মহীনদের বরাবরে সরকারের দেয়া ২৫০০ টাকা ছাড় শুরু * ২৩ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৮৭৩, মৃত ২০ * বিদায় মাহে রমজান, আজ জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা * হালদায় ১৪ বছরের সর্বোচ্চ রেকর্ড, ২৫ হাজার ৫৩৬ কেজি ডিম সংগ্রহ * ২২ মে : চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১৬১ * সন্দ্বীপ পৌরসভার জাটকা আহরণে বিরত জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ * ২২ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৬৯৪, মৃত ২৪ * এসএসসির ফল ৩১ মে * ঈদে বাইরে ঘোরাফেরা নয়, ঘরেই থাকুন: র্যা ব ডিজি * ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদানে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ * সন্দ্বীপ পৌরসভার কর্মহীন অসহায় মানুষদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ইদ উপহার বিতরণ * ২১ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৭৭৩, মৃত ২২ * বায়তুশ শরফের পীরের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন * দুর্বল হয়ে পড়েছে আম্পান, বন্দরসমূহে ৩ নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত * করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বায়তুশ শরফের পীর ছাহেব * দুর্বল হয়ে পড়ছে 'আম্পান', উপকূলীয় কিছু এলাকা ক্ষতিগ্রস্থ,নিহত অন্তত ৭ * ২০ মে : চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ২৫৭ * ২০ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৬১৭, মৃত ১৬ * পশ্চিমবংগের সাগরদ্বীপ ও সুন্দরবনকে কেন্দ্র করে উপকূলে আঘাত হানতে শুরু করেছে আম্ফান * সন্দ্বীপের উপকূলীয় এলাকায় ঘুর্ণিঝড় সতর্কতায় মেয়র টিটুর মাইকিং * ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় কন্ট্রোল রুম খুলেছে সন্দ্বীপ পৌরসভা * ঘুর্ণিঝড় আম্ফান : মংলা ও পায়রা ১০, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার ৯ নং মহা বিপদ সংকেত * আজ সন্ধ্যা নাগাদ সুন্দরবনের উপর দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে আম্ফান , মংলা ও পায়রা ১০ নং বিপদ সংকেত *
     26,2018 Friday at 22:18:11 Share

জিম্বাবুয়ে বাংলাওয়াশ, সৌম্য-ইমরুলের জোড়া সেঞ্চুরী

জিম্বাবুয়ে বাংলাওয়াশ,  সৌম্য-ইমরুলের জোড়া সেঞ্চুরী

২৮৭ রানের লক্ষ্যটা বেশ বড়ই ছিল। কিন্তু ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকার সেই লক্ষ্যটাকে একেবারে মামুলি বানিয়ে দেন। দু’জনই করেছেন সেঞ্চুরি। সেই সুবাদে মাত্র ৪২.১ ওভারে তিন উইকেট হারিয়েই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। এর মাধ্যমে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে বাংলাওয়াশ করল টাইগাররা।


 


বড় লক্ষ্য সামনে রেখে ব্যাটিংয়ে নামার পর মাত্র শূন্য রানে লিটন দাস আউট হলে শুরুতেই চাপে পড়ে বাংলাদেশ। কিন্তু তা দীর্ঘক্ষণ থাকেনি। ইমরুল-সৌম্য দ্বিতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের (২২০ রান) জুটি গড়ে জয়টাকে নিয়ে আসেন হাতের নাগলে। টানা আট ম্যাচে ব্যর্থতার পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচে দলেই জায়গা পাননি সৌম্য। পরে অভিষিক্ত ফজলে রাব্বির ব্যর্থতার সুবাদে তৃতীয় ম্যাচে একাদশে আসেন। আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে তোলে নেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। ৯২ বল থেকে ৯টি চার ও ৬টি ছক্কার মারে সৌম্য করেছেন ১১৭ রান। 


 


দলীয় ২২০ রানে সৌম্য আউট হওয়ার পরও মাঠে ছিলেন ইমরুল। সৌম্য আউট হওয়ার পর ইমরুলও সেঞ্চুরি করেন। তখন সঙ্গী হন মুশফিক। জয় থেকে দল যখন মাত্র ১৩ রান দূরে তখন ইমরুলও আউট হন। তার আগেই ১১২ বল থেকে ১০টি চার ও দুটি ছক্কার মারে তিনি করেন ১১৪ রান। এতে তিন ম্যাচ সিরিজে দুই সেঞ্চুরিসহ ইমরুলের রান দাঁড়ায় ৩৪৮। এর আগে তামিমের করা এক সিরিজে ৩১২ রানের রেকর্ডও এর মাধ্যমে ভাঙতে সক্ষম হন তিনি। 


 


ইমরুল আউট হওয়ার পর মুশফিক-মিঠুন জুটি বাকি কাজটা করতে সক্ষম হন। মুশফিক ২৮ ও মিঠুন ৭ রানে অপরাজিত ছিলেন।   


 


চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের শুক্রবার দুপুরে শেষ ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামতে হয় জিম্বাবুয়েকে। নির্ধারিত ওভার শেষে ৫ উইকেটে ২৮৬ রান করে তারা। ১৪৩ বল থেকে ১০টি চার ও একটি ছক্কার মারে ক্যারিয়ার সেরা ১২৯ রান করে অপরাজিত থাকেন উইলিয়ামস। ওয়ানডেতে এটি তার দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। 


 


ধবলধোলাই থেকে বাঁচার মিশনে মাঠে নেমে মাত্র ৬ রানে দুই ‍উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। দুই ওপেনার কেপাস জুয়াও ও হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে সাজঘরে ফেরান মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও আবু হায়দার রনি। এরপর জুটি বাঁধা ব্রেন্ডন টেলর ও শিন উইলিয়ামস। এ দু’জনই ভোগাচ্ছিলেন বাংলাদেশকে। টেলরকে আউট করে ১৩২ রানের জুটি ভাঙেন নাজমুল ইসলাম অপু। আউট হওয়ার আগে ৭২ বল থেকে ৮টি চার ও তিনটি ছক্কার মারে টেলর করেন ৭৫ রান। 


 


এতেও থামানো যাচ্ছিল না জিম্বাবুয়েকে। সিকান্দার রাজাকে সঙ্গে নিয়ে একই গতিতে এগোতে থাকেন উইলিয়ামস। তবে ৪৩তম ওভারে এসে রাজাকে ফেরান সেই অপু। ৯০ রানের জুটি ভেঙে আউট হওয়ার আগে রাজা করেছেন ৪০ রান। আর ১২৯ রানের দারুণ ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন উইলিয়ামস। পিটার মুর শেষ দিকে ২১ বলে দুই ছক্কায় ২৮ রানের দারুণ ইনিংস খেলে শেষ ওভারে রান আউট হয়ে যান। শেষ দুই ওভারে আবু হায়দার রনি ও সাইফ উদ্দিনের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে জিম্বাবুয়েকে তিনশ এর নীচেই বেঁধে রাখতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। 


 


 

User Comments

  • খেলাধুলা