২০ আগস্ট ২০১৯ ২২:৩২:০৭
logo
logo banner
HeadLine
২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু * ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি ১,৬১৫ জন, কমছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা * জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্রথমবারের মতো পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস * ডেঙ্গু দমন নিয়ে অসন্তোষ হাইকোর্ট * সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু * ডেঙ্গুর কার্যকর ওষুধ ছিটাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও দুই মেয়রকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ , নাগরিকদেরকে তাদের বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি * সরকারী হাসপাতেলে বিনামূল্যে, বেসরকারীতে ডেঙ্গু পরীক্ষার ফি বেঁধে দিয়েছে সরকার * ডেঙ্গু জ্বর: প্রতিরোধের উপায় * ডেঙ্গু : প্রকার, প্রতিরোধ ও চিকিৎসা * ডেঙ্গু সম্পর্কে ১০ তথ্য * টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা, সমুদ্রবন্দরসমূহে ৩ নং সতর্ক সংকেত * মশা নিধনে দুই সিটি করপোরেশনকে চারদিন সময় দিলেন হাইকোর্ট * আমরা বিশুদ্ধ পানি চাই: হাইকোর্ট * প্রধানমন্ত্রীর চোখে অস্ত্রোপচার * ছেলেধরা সন্দেহে ১৮ জনকে গণপিটুনি, সারাদেশে আতঙ্ক * গুজব-গণপিটুনি বন্ধে পুলিশ সদর দপ্তরের বার্তা * দূত সম্মেলনে যোগ দিলেন প্রধানমন্ত্রী * রাজধানীতে ছেলেধরা সন্দেহে গনপিটুনিতে নিহতের ঘটনায় ৫০০ জনের বিরুদ্ধ্বে হত্যা মামলা * লন্ডন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী * ধর্মীয় সম্প্রীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি উল্লেখযোগ্য নাম, সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিষয়ে প্রিয়া সাহার অভিযোগ সঠিক নয়, : মার্কিন রাষ্ট্রদূত * রিফাত হত্যায় আদালতে মিন্নির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি * রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারকে চাপ দিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আহ্বান * জিএম কাদের জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান * এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ, পাসের হার ৭৩.৯৩ * অরক্ষিত রেলক্রসিং, মাইক্রোবাসে ট্রেনের ধাক্কায় বর-কনেসহ নিহত ৯ * উন্নয়নের গতি বাড়াতে ডিসিদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ * রোমাঞ্চকর ফাইনাল জিতে চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড * হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর জীবনাবসান * দুর্নীতির কারণে আমাদের অর্জনগুলো যেন নষ্ট হয়ে না যায় - প্রধানমন্ত্রী * কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধসে নিহত ২, আরো ভারী বর্ষণ-ভূমিধসের সম্ভাবনা *
     06,2018 Tuesday at 16:09:49 Share

চট্টগ্রাম-৩, সন্দ্বীপের গনমানুষের আস্থার অপরনাম জাফর উল্যা টিটু

চট্টগ্রাম-৩, সন্দ্বীপের গনমানুষের আস্থার অপরনাম জাফর উল্যা টিটু

ইকবাল হায়দার ঃঃ সংবাদ.নেট।।


জাফর উল্যা টিটু। ১৯৭৩ সালের মধ্য অগাষ্টে সন্দ্বীপ উপজেলার রহমতপুর ইউনিয়নের এক সমভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন তিনি। পিতামহ সমাজসেবক ও দনবীর মেরিকান আব্দুর রহমান ছিলেন সমসাময়িক কালের একজন ধনাঢ্য ব্যক্তি। পিতা মোহাম্মদ আবুল খায়ের স্বাধীন বাংলাদেশের অদ্ভ্যুদয়ের আগ থেকেই নিয়োজিত আছেন নিবেদিত প্রাণ সক্রিয় আওয়ামীলীগ কর্মি হিসেবে। ১৯৬৯ সাল থেকে ১৯৭৫ পট পরিবর্তন হয়ে ১৯৮৬ পর্যন্ত তিনি সন্দ্বীপ থানা আওয়ামীলীগের কোষাধক্ষ্যসহ বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ দায়িত্ব খুবই দক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন। পরবর্তীতে ১৯৮৬/৮৭ সালে দায়িত্ব পান রহমতপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতির এর পর পৌর আওয়ামীগ সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন তিনি। বর্তমানে তিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।



বর্ণাঢ্য এই রাজনৈতিক পরিবারে বেড়ে উঠা জাফর উল্যা টিটুর স্কুলজীবন শুরু হয় ১৯৭৯ সালের দিকে। ১৯৮৭ সালে সন্দ্বীপের ঐতিহ্যবাহী কার্গিল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় তিনি নির্বাচিত হন স্কুল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে। এসএসসি পাশের পর তিনি ভর্তি হন স্থানীয় একমাত্র সরকারী হাজী আব্দুল বাতেন কলেজে। অদম্য মেধাবী এই ছাত্রনেতা ১৯৯১ সালে কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর দেশের অন্যান্য স্থানের মতো প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক বাঁধার মুখে তিনি একটি দিনের জন্যও থেমে থাকেন নি তিনি। বংগবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ অন্তপ্রাণ এই তরুণ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সংগঠিত করতে থাকেন শত সহস্র তরুনকে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও বংগবন্ধুর আদর্শ ছড়িয়ে দিতে থাকেন সারা সন্দ্বীপব্যপি সকল ছাত্র, যুবক ও তরুনদের মাঝে। নিজে উদ্যোগে তিনি গড়ে তোলেন ‘নব প্রজন্মে মুজিব’ নামক এক সামাজিক সাংষ্কৃতিক সংগঠন। পরবরতীতে ১৯৯৮ সাল থেকে পর পর দুই মেয়াদে তিনি কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন।



বংগবন্ধুর আদর্শের অন্তপ্রাণ এই ছাত্রনেতা ছাত্রজীবন শেষে তিনি জড়িয়ে পড়েন আওয়ামী রাজনীতিতে। হাজারো ছাত্রলীগ তৈরীর এই সুনিপুন কারিগর বংগবন্ধুর আদর্শ সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করতে থাকেন। খুবই অল্প সময়ে তিনি নেতা-কর্মিদের কাছের মানুষে পরিনত হন। সুখ দুখ আনদ বেদনায় তিনি তাদের পাশে থেকে তাদের আস্থা ও ভরসার প্রতিক হয়ে উঠেন। কর্মি অন্তপ্রাণ এই নেতা ২০০৯ সালে তিনি সন্দ্বীপ পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। পাশাপাশি তিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্যও মনোনীত হন। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।



২০১১ সালে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে সন্দ্বীপ পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন। তার নিরলস প্রচেস্টায় দেশের ‘গ’ শ্রেণীর একটি পৌরসভা অল্পকিছু দিনের মাঝে ‘খ’ শেণীতে উন্নীত হয়। রাস্তা, ঘাট, ব্রীজ , কাল্ভার্ট নির্মানের পাশাপাশি সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত একটি পৌরসভা হিসাবে সন্দ্বীপ পৌরসভা আদর্শ পৌরসভা হিসাবে দেশের সর্বত্র সুনাম ছড়িয়ে পড়ে। সাধারণ মানুষের পাশে থেকে তাদের ভাগ্য উন্নয়নে আন্তরিক প্রচেস্টার ফল পুরস্কারসরুপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সন্দ্বীপ পৌরসভার মেয়র পদের জন্য আবারও জাফর উল্যা টিটুকে দলীয় মনোনয়ন দেন। জনগনের আস্থা ভালবাসায় তিনি পুনরায় বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন। নেতৃত্বের গুনাবলি, শিস্টাচার, মানবিক মুল্যবোধ, সাধারন মানুষের অভাব অভিযোগ শোনার অপরীসীম ধৈর্য তাকে নেতা-কর্মিদের শেষ আশ্রয়স্থলে পরিনত করে। নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ঘুর্ণিঝড়, ঝড়, জলোচ্ছ্বাসে তিনি ছুটে যান প্রত্যন্ত প্রান্তিক মানুষের কাছে, তাদেরকে সতর্ক করেন, সাহায্য দেন, সমবেদনা জানান। সমাজের অসহায় গরীব মানুষের পাশে আজন্ম তিনি থেকেছেন অভিভাবকের ভুমিকায়। কারও ঘর নেই, কেউ অসুস্থ, কেউ মেয়ে বিয়ে দিতে পারছেন না, কেউ অভাব অনটনে আছেন প্রত্যেককেই তিনি নিজের সাধ্যমত সহযোগীতা করে আসছেন। ছাত্র অবস্থা থেকেই তিনি তার এই মুল্যবোধগুলো অত্যান্ত যত্ন করে লালন করে আসছেন। এইসব গুনাবলী তাকে একজন নেতা থেকে গনমানুষের আপনজন হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে। ছাত্র, শিক্ষ্‌ ইমাম, মুযাজ্জিন, ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে খেটে খাওয়া কুলি মজদূর পর্যন্ত সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষের কাছে তিনি হয়ে উঠেছেন তাদের আপনজন।



জনসেবার পাশাপাশি মুজিব আদর্শের এই অকুতোভয় সৈনিক অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বংগবন্ধুর আদর্শ সমাজের সাধারন মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে। ১৯৯৬ সালে নিজ উদ্দোগে প্রতিষ্ঠা করেন, “ নব প্রজন্মে মুজিব’ নামে একটি সামাজিক সাংষ্কৃতিক সংগঠন।জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে এ সংগঠন দীর্ঘ ২২ বছর ধরে নিরলসভাবে কাজ করে আসছে।নতুন কর্মি সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি এ সংগঠনটির ব্যানারে সারা সন্দ্বীপব্যাপি আয়োজন করতে থাকেন বিভিন্ন ক্রীড়া ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান। নানা প্রতিকূল পরিবেশের মাঝেও অদ্যবদি এই সংগঠনটি মুজিব সৈনিক তৈরীর কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে।
খেলার ছলে যুবকদের সংগঠিত করার উদ্দ্যেশ্যে তিনি নিজস্ব উদ্যোগে চালু করেন, ‘মেয়র কাপ ফুটবল টুরণামেন্ট” নামে একটি অত্যন্ত জমজমাট ও সফল ফুটবল টুর্ণামেন্ট। একজন দক্ষ সংগঠক হিসাবে তিনি আবাহনী ক্রীড়া চক্র, সন্দ্বীপ উপজেলার উপদেস্টা ও আবাহনী সমর্থক গোষ্ঠী, চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সদস্য হিসাবে কাজ করে আসছেন।



 শিক্ষানূরাগী জাফর উল্যা টিটু  মুছাপুর আব্দুল বাতেন উচ্চ বিদ্যালয়, রহমতপুর উচ্চ বিদ্যালয়, থানা উন্নয়ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসাবে অত্যান্ত দক্ষতার সাথে তার দায়িত্ব পালন করেন।


২০১১ সাল থেকে তিনি চট্টগ্রাম জেলা সমন্বয় কমিটি,  চট্টগ্রাম জেলা আইন শৃংখলা কমিটি, চট্টগ্রাম জেলা কর্ণধার কমিটি, চট্টগ্রাম জেলা বিদ্যুত কমিটির সদস্য হিসাবেও দায়িত্ব পালন করছেন। এর বাইরেও তিনি সন্দ্বীপ উপজেলা সমন্বয় কমিটি, সময়কাল ও সন্দ্বীপ উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সদস্য হিসাবে কাজ করছেন।


মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বংগবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত এই লড়াকু সৈনিক ছাত্রাবস্থা থেকে দেশের সকল আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহন করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও এর অংগসংগঠনের একজন কর্মি হিসাবে ওতপ্রেতভাবে সক্রিয় লড়াই করে গেছেন। ৯০ এর সৈরাচারবিরোধী আন্দোলন, ৯৬ এর অসযোগ আন্দোলন, ২০০৬ এ বিএনপি জামাতের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আন্দোলনে তিনি রাজপথে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ২০১৩-১৪ এ বিএনপি- জামাতের আগুন সন্ত্রাস ও জ্বালাও পোড়াও এর বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন এক দুর্জয় প্রতিরোধ। ২০০১ সালে জোট সরকার ক্ষমতায় এলে প্রাণ ভয়ে সন্দ্বীপ ছেড়ে আসতে হয় তাকে। চট্টগ্রামে এসে তিনি নেতা-কর্মিদের সংগঠিত করে রাজপথে থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সকল আন্দোলন সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন।   



নেতা-কর্মিদের প্রতি ভালবাসা, সাধারণের প্রতি মমত্ব, রজনৈতিক প্রজ্ঞায় তিনি ঠাঁই করে নিয়েছেন সন্দ্বীপের সর্বস্তরের মানুষের হৃদয়ের মনিকোঠায়। সন্দ্বীপের মানুষের কাছে জাফর উল্যা টিটু এক শুদ্ধ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নাম। নেতা-কর্মিদের আস্থা বিশ্বাসের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনিত হয়েছেন তিনি। সাধারন মানুষের শেষ কাছে তিনি শেষ আশ্রয়স্থল। সন্দ্বীপের আওয়ামীলীগের তৃণমূলের নেতা-কর্মি থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ তাকে আরও বড় পরিসরে তাদের প্রতিনিধি হিসাবে দেখতে চায়। তাদের প্রত্যাশা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাফর উল্যা টিটুকে দলের মনোনয়ন দিয়ে সেই সুযোগের পথ আরও প্রশস্ত করবেন। ব্যক্তিগত জীবনে স্ত্রী মেহেরুন্নেসা , দুই শিশুকন্যা আনিসা ইবনাত আনিসা (১৩) আছিয়া ইবনাত তানিসা (১০) এবং এক শিশুপুত্র জোবায়ের উ্ল্যা তাহিনের (৬) জনক মৃদুভাষী ও অমায়িক মুজিব সৈনিক জাফর উল্যা টিটুর জন্য নিরন্তর ভালবাসা, দোয়া ও শুভকামনা।    

User Comments

  • সন্দ্বীপ প্রতিদিন