১৭ জানুয়ারি ২০১৯ ২:৩০:৫১
logo
logo banner
HeadLine
বিশ্বের বৃহত্তম দোসা বানালেন চেন্নাইয়ের একদল রাঁধুনি * কমোডের চেয়েও বেশি জীবাণু স্মার্টফোনে! * সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু * অস্থির বাজারেও চালের দাম কমছে খাতুনগঞ্জে * ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নবম ওয়েজবোর্ডের প্রজ্ঞাপন জারি: তথ্যমন্ত্রী * মালিক-শ্রমিক-সরকার ত্রিপক্ষীয় বৈঠক, ৬ গ্রেডে বেতন বাড়ল পোশাকশ্রমিকদের * দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে: প্রধানমন্ত্রী * সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গারা, কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে এলাকা আটকানোর পরিকল্পনা * গণতন্ত্রের স্বার্থে সংসদে আসা উচিত : প্রধানমন্ত্রী * নতুন সরকার ও দল শক্তিশালী করতে করণীয় নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আজ প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক * আগামী ৫ দিন দেশব্যাপী বইবে মৃদু থেকে মাঝারী শৈত্যপ্রবাহ থাকবে কুয়াশাও * ওরা যেন আর ফিরে না আসে - নির্বাচনে অগ্নিসন্ত্রাসীদের প্রত্যাখ্যান প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী * জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভা সদস্যদের শ্রদ্ধা * আজ জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস * পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ অব্যাহত, অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ, বিজিবি মোতায়েন * একাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসছে ৩০ জানুয়ারি * সন্দ্বীপে গুলিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী কালা মনির নিহত * নতুন বাংলাদেশ গড়তে দৃঢ় প্রত্যয়ী প্রধানমন্ত্রী * ৮৭ হাজার গ্রামকে উন্নয়নের মূল ধারায় আনার লক্ষ্যেই সোয়া ৫ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষনার প্রস্তুতি * শপথ নিলেন মন্ত্রিপরিষদের ৪৭ সদস্য * চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হলেন শেখ হাসিনা * বাংলাদেশ পুরো বিশ্বে সফল দেশ হিসেবে পরিচিত - হর্ষবর্ধন শ্রিংলা * ঐক্যফ্রন্ট কি মরিয়া প্রমাণ করিবে, মরে নাই? * কাল শপথ নিচ্ছেন ২৪ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী ও ৩ উপমন্ত্রী * বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ * কাল শপথ, কারা আসছেন নতুন মন্ত্রীসভায়? * 'এমন জীবন তুমি করিবে গঠন, মরণে হাসিবে তুমি কাঁদিবে ভুবন' * এপির বিশ্লেষণ : নির্ভার শেখ হাসিনা, নেপথ্যে আন্তর্জাতিক সমর্থন * এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টিই বসছে বিরোধী দলে * সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যু : রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পীকার, ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপির শোক; লাশ আসছে কাল *
     07,2018 Wednesday at 19:13:37 Share

আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করবো: মির্জা ফখরুল

আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করবো: মির্জা ফখরুল

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সংলাপকে আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি যদি সরকার না মানে, আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে আদায় করবো।’ বুধবার (৭ নভেম্বর) গণভবনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংলাপের পর বেইলি রোডে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।


মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান হওয়া উচিত। কিন্তু সরকার যদি সে পথে না আসে, সরকার যদি আলোচনার মাধ্যমে একটা জায়গায় পৌঁছাতে না চায়, তাহলে তার দায়দায়িত্ব সরকারের ওপরই বর্তাবে।’


এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা প্রস্তাব করেছি এ বিষয়ে আরও আলোচনা চালিয়ে যেতে চাই। সরকার বলেছে, তফসিল ঘোষণার সঙ্গে এই আলোচনার কোনও সম্পর্ক থাকবে না। প্রয়োজনে তফসিল রিসিডিউলও করা যেতে পারে।’ এ সময় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘তফসিল ঘোষণা করতে আমরা মানা করেছি। এরপরও যদি তারা করে, নিশ্চয় আমরা পছন্দ করবো না। তাহলে নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রা শুরু করবো। আমরা আমাদের মতো করে বলেছি, তফসিল রিসিডিউল করা যেতে পারে। আমরা সেই দাবিই তুলেছি।’


সংলাপ ফলপ্রসূ হয়েছে কিনা—এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ফলপ্রসূ হলো কিনা, তা তো আলোচনা শেষে বোঝা যাবে। আলোচনা তো অব্যাহত আছে।’ সংলাপে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আশার আলো দেখছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, জনগণ যদি দেখে, তাহলে আশার আলো দেখা হবে। কাল আমরা রোডমার্চ করে রাজশাহী যাচ্ছি, পরশু সেখানে জনসভা করবো।’


ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবির কয়টি সরকার মেনে নিয়েছে? এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা পুরোটাই বিবেচনা করবো। যখন পুরো বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে, তখন আপনাদের জানাবো।’


খালেদা জিয়ার কারামুক্তি প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে অবশ্যই আলোচনা হয়েছে। সে ব্যাপারে আমরা বলেছি, তিনি তো আইনগতভাবেই জামিনে মুক্তি পাওয়ার যোগ্য।’


নির্বাচনকালীন সরকার প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘এই বিষয়টা আমরা বলেছি। আমরা যেহেতু বলেছি সংসদ ভেঙে দিতে হবে, তো সংসদ ভেঙে দেওয়ার ৯০ দিন পরেই তো নির্বাচন হবে।’ তিনি বলেন, ‘সংসদ ভেঙে দেওয়াটা সংবিধানের অন্তর্গত। এখনই আমাদের সংবিধানে আছে, একইসঙ্গে দুটি সংসদ থাকবে, এটা তো কোনও নিয়ম হতে পারে না। তারা যদি বলেন, সংসদ ভেঙে দেওয়া সম্ভব না, তাহলে তারা ভুল বলেছেন। সাংবিধানিকভাবেই আমরা প্রস্তাব করেছি। সেক্ষেত্রে সংসদ ভেঙে দেওয়ার ৯০ দিন পরেই নির্বাচন হতে হবে। এটাই কথা।’ এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা প্রস্তাব করেছি।’


সংসদ ভেঙে দেওয়ার দাবিতে সরকার রাজি হয়েছে কিনা, জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা বলেছেন, আলোচনা হতে পারে। আমরা কালকেই ঘোষণা দিয়েছি, সাত দফা দাবিতে রোডমার্চ করবো। কাল যদি তফসিল ঘোষণা করা হয়, তাহলে নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রা করবো।’ এ সময় মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন আর কোনও মামলা হবে না, আর কোনও গ্রেফতার হবে না।’


সরকারের সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের দ্বিতীয় দফা সংলাপ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের দাবিগুলো নিয়ে সরকারের কাছে গিয়েছি। সরকার বলেছে, তারা ভবিষ্যতে এগুলো নিয়ে আলোচনা করে দেখবে। আলোচনার সুযোগ আছে। সেটুকু থাকবে। আমাদের দাবি নিয়ে জনগণের যাচ্ছি, জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে আমরা দাবি আদায়ের চেষ্টা করবো।’ আন্দোলন সংঘাতের দিকে যাচ্ছে কিনা, এ প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এর দায় তো সরকারের।’ এ সময় ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশে স্থিতিশীল পরিস্থিতি বজায় রাখার জন্য আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। বল সরকারের কোর্টে।’


নির্বাচন পেছানো প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা সিডিউল পেছানোর দাবি করছি একটি অর্থবহ নির্বাচনের জন্য।’ banglatribune.

User Comments

  • আরো