২৪ নভেম্বর ২০২০ ১৯:৩:৫৮
logo
logo banner
HeadLine
বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহারে আরো কঠোর হতে পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার * ২৩ নভেম্বার : দেশে শনাক্ত আরও ২৪১৯, মারা গেছেন ২৮, সুস্থ ২১৮৩ জন * ২৫ পৌরসভার নির্বাচন ২৮ ডিসেম্বর * মূর্তি বা ভাস্কর্য মানেই শিরকের উপকরণ নয়: হাফেজ মাওলানা জিয়াউল হাসান * ২২ নভেম্বার : দেশে আজ শনাক্ত ২০৬০, মারা গেছেন ৩৮, সুস্থ ২০৭৬ জন * অক্সফোর্ডের গবেষণা : ছয় মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বার সংক্রমণের সম্ভাবনা নেই * বসলো পদ্মাসেতুর ৩৮তম স্প্যান , দৃশ্যমান ৫৭০০ মিটার * ২১ নভেম্বার : দেশে নতুন শনাক্ত ২২৭৫, মারা গেছেন ১৭ জন, সুস্থ ১,৭০৯ * ২০২২ থেকে নবম-দশম শ্রেণিতে বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক থাকছে না * ২০ নভেম্বার : আজ শনাক্ত ২২৭৫, মৃত্যু ১৭, সুস্থ ১৭০৯ * ১৯ নভেম্বার : দেশে আজ শনাক্ত ২৩৬৪, মৃত্যু ৩০, সুস্থ ১৯৩৪ জন * করোনাকালে টিউশন ফি ছাড়া অন্য কোন ফি নয় - মাউশি * করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি রয়েছে - সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রধানমন্ত্রী * করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী * ১৯ নভেম্বার : চট্টগ্রামে শনাক্ত আরও ১৬১ *
     19,2020 Thursday at 11:23:35 Share

কালো টাকা সাদা করার সুযোগ বেড়েছে আরও

কালো টাকা সাদা করার সুযোগ বেড়েছে আরও

বাজেটে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ এবার আরো অবারিত করার প্রস্তাব দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। মাত্র ১০ শতাংশ কর দিয়ে অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে অবস্থিত শিল্পে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগ করা যাবে। এর আগে আবাসন খাতে নির্দিষ্ট পরিমাণ কর দিয়ে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ ছিল।

এবার জমি ক্রয়ের ক্ষেত্রেও এ সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। আর সব খাতেই প্রযোজ্য হারে কর ও এর ওপর ১০ শতাংশ জরিমানা দিয়ে অপ্রদর্শিত অর্থ বৈধ করার সুযোগ ছিল। তবে এবার অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাইটেক পার্কে অপ্রদর্শিত অর্থের মালিকরা অপেক্ষাকৃত কম কর পরিশোধ করেই কালো টাকা বৈধ করতে পারবেন। অথচ বর্তমানে একজন নিয়মিত করদাতাকে সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ কর পরিশোধ করতে হয়।

মূলত নির্দিষ্ট কিছু খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে সরকার অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের এ সুযোগ দিয়েছে। তবে এর ফলে নিয়মিত কর পরিশোধকারীদের চাইতে অপ্রদর্শিত অর্থের মালিকরা কম কর দিয়ে টাকা বৈধ করার সুযোগ পাওয়ায় নিয়মিত করদাতারা নিরুত্সাহিত হতে পারেন বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। অন্যদিকে অপ্রদর্শিত অর্থের মালিকরা আরো উত্সাহিত হতে পারেন।

আবাসন খাতে অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাব অনুযায়ী বিভিন্ন এলাকাভিত্তিক অপেক্ষাকৃত কম টাকা পরিশোধ করে অপ্রদর্শিত অর্থ বৈধ করা যাবে। প্রস্তাব অনুযায়ী গুলশান, বনানী, বারিধারা, মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকায় ও এগুলোর দুইশ বর্গমিটারের মধ্যে অ্যাপার্টমেন্ট বা ভবন ক্রয়ে প্রতি বর্গমিটারে বিদ্যমান কর সাত হাজার ও পাঁচ হাজার টাকার স্থলে পাঁচ হাজার ও চার হাজার টাকা হচ্ছে। এছাড়া এসব এলাকায় প্রতি বর্গমিটার জমিতে ১৫ হাজার টাকা কর দিয়ে বৈধ করা যাবে।

একইভাবে রাজধানীর অন্যান্য এলাকা, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভায় অ্যাপার্টমেন্ট ক্রয়ে বিদ্যমান করের পরিমাণ কমছে। ওইসব এলাকায় জমি ক্রয়ের ক্ষেত্রেও নির্দিষ্ট পরিমাণ কর দিয়ে টাকা বৈধ করা যাবে।

User Comments

  • ব্যবসা ওঅর্থনীতি