২৭ মে ২০২০ ৬:২১:৩৫
logo
logo banner
HeadLine
২৬ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১১৬৬, মৃত ২১ * বায়ুচাপের তারতম্যে, সমুদ্রবন্দরসমূহে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত * করোনা সংকটে দরিদ্রদের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আহবান রাষ্ট্রপতির * যথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন * যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ও ঈদ উপহার * ২৫ মে : চট্টগ্রামে শনাক্ত আরও ১৭৯ * যুক্তরাষ্ট্রে পিপিই রপ্তানি শুরু করলো বাংলাদেশ * ২৫ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৯৭৫, মৃত ২১ * ২৪ মে : চট্টগ্রামে আরও ৬৫ জনের করোনা শনাক্ত * আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা * করোনায় মারা গেলেন এনএসআই কর্মকর্তা সন্দ্বীপের নাছির উদ্দিন * সন্দ্বীপবাসীকে পবিত্র ইদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন মেয়র * ২৪ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৫৩২, মৃত ২৮ * করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত চলবে সরকারি সহায়তা, জীবন-জীবিকার স্বার্থে চালু করতে হবে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড - প্রধানমন্ত্রী * সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা * ২৩ মে : চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১৬৬ * করোনাকালীন সঙ্কটে পড়া সন্দ্বীপ পৌরসভার কর্মহীনদের বরাবরে সরকারের দেয়া ২৫০০ টাকা ছাড় শুরু * ২৩ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৮৭৩, মৃত ২০ * বিদায় মাহে রমজান, আজ জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা * হালদায় ১৪ বছরের সর্বোচ্চ রেকর্ড, ২৫ হাজার ৫৩৬ কেজি ডিম সংগ্রহ * ২২ মে : চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১৬১ * সন্দ্বীপ পৌরসভার জাটকা আহরণে বিরত জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ * ২২ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৬৯৪, মৃত ২৪ * এসএসসির ফল ৩১ মে * ঈদে বাইরে ঘোরাফেরা নয়, ঘরেই থাকুন: র্যা ব ডিজি * ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদানে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ * সন্দ্বীপ পৌরসভার কর্মহীন অসহায় মানুষদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ইদ উপহার বিতরণ * ২১ মে : দেশে আজ শনাক্ত আরও ১৭৭৩, মৃত ২২ * বায়তুশ শরফের পীরের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন * দুর্বল হয়ে পড়েছে আম্পান, বন্দরসমূহে ৩ নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত *
     12,2019 Friday at 21:15:39 Share

আরও বৃষ্টির আশংকা, বিপদসীমার উপরে প্রধান নদ-নদীর পানি

আরও বৃষ্টির আশংকা, বিপদসীমার উপরে প্রধান নদ-নদীর পানি

শুক্রবার দুপুর থেকে রাজধানীসহ সারাদেশ ভারী বৃষ্টিপাতে বিপর্যস্ত। অতিরিক্ত বৃষ্টির কারণে দেশের সব প্রধান নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে দ্রুতগতিতে। এরকমভাবে বৃষ্টি চলতে থাকলে পানি যেকোনো সময় বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।


এদিকে দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলে থেমে থেমে ভারী বৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। সোমবার এই বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমতে পারে বলে তারা জানায়। ভারী বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম অঞ্চলে ভূমিধসেরও আশঙ্কা রয়েছে। এ কারণে নদীবন্দরে সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে।


আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল থেকেই দেশের উত্তর-পূর্ব, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল এবং ভারতের আসাম ও মেঘালয় রাজ্যে আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হয়। এর ফলে দ্রুতগতিতে দেশের সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। আবহাওয়া অফিস জানায়, আজকের মধ্যেই যমুনা নদীর জামালপুর জেলার বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে। অফিস সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল ৬টা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় রাঙ্গামাটিতে ১৬৫, হাতিয়ায় ১৩৫, সীতাকুণ্ড১২৯, টাঙ্গাইলে ১২২, কুতুবদিয়ায় ১১১, সনদ্বীপে ১০১ এবং চট্টগ্রামে ৮৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।


 


এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান  বলেন, ‘আগামী দুই দিন এই বৃষ্টি থেমে থেমে অব্যাহত থাকবে। সোমবার থেকে বৃষ্টির পরিমাণ কমে আসবে। কিন্তু একেবারে বন্ধ হবে না। বষা মৌসুমে এই বৃষ্টি স্বাভাবিক। ভারী বৃষ্টির কারণে নদীবন্দরে সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে।’


এদিকে, শুক্রবার (১২ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ঢাকার সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ৭৬ মিলিমিটার এবং দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে রাঙ্গামাটিতে। এই অঞ্চলের বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ১৯৪ মিলিমিটার।


আবহাওয়ার এক সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় শুক্রবার (১২ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট এবং চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী (৪৪ থেকে ৮৮ মিলিমিটার) থেকে অতি ভারী (৮৯ মিলিমিটারের বেশি) বর্ষণ হতে পারে। অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকায় কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুছ।


অন্যদিকে, শুক্রবার রাত ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, রংপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা, বরিশাল,পটুয়াখালী, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে দক্ষিণ বা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।


 


অন্যদিকে পাহাড়ি ঢলে বন্যা পরিস্থিতি এখনো অবনতির দিকে। শুক্রবার সকাল থেকেই বেড়েছে সুরমা, ধরলা ও তিস্তার পানি। পানিবন্দি হয়ে আছে অনেক গ্রামের মানুষ। কমপক্ষে হাজারো পরিবার ঠাঁই নিয়েছেন আশ্রয়শিবিরে।


লালমনিরহাট জেলার প্রায় সবকটি নদীর পানিবৃদ্ধি অব্যাহত হয়েছে। বিপদসীমা ছুঁইছুঁই করছে ধরলা’র পানিও। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। পানিবন্দী ১৯টি ইউনিয়নের ৬০টি গ্রামের অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ। আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা কুটিরপাড়ে বাঁধ ভেঙ্গে তিস্তার পানিতে ভেসেছে লোকালয়। ডুবেছে ঘর-বাড়ী ও আবাদি জমি। গবাদি পশুসহ অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন সরকারি রাস্তা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধে। খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সঙ্কটে চরম অমানবিক পরিস্থিতে পড়েছেন দুর্গতরা।


খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির আভাস নেই। বুধবার থেকে পানিবন্দি ২৫ গ্রামের ১৫ হাজার মানুষ। ১২টি আশ্রয় শিবিরে উঠেছে তিন শতাধিক পরিবার। এখনো বিচ্ছিন্ন দীঘিনালার সাথে রাঙামাটির লংগদুর সড়ক যোগাযোগ।


বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। সড়কের বিভিন্ন স্পট তলিয়ে বুধবার থেকে বিচ্ছিন্ন সারাদেশের সাথে সড়ক যোগাযোগ। পাহাড় ধসে সাত উপজেলার অভ্যন্তরীন রাস্তাগুলোও বন্ধ রয়েছে।


একই অবস্থা সিলেটের সুনামগঞ্জ জেলার। জানা যায়, গত পাঁচ দিনের ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। সুরমা নদীর পানি প্রবাহিত হচ্ছে বিপদসীমার ৮৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে। আকস্মিক এই বন্যায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন জেলার লক্ষাধিক মানুষ। বন্যার কারণে বন্ধ রয়েছে প্রায় তিনশ’ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ৬টি পয়েন্ট দিয়ে পাড় উপচানো পানি সুনামগঞ্জ শহরে ঢুকে প্লাবিত হচ্ছে আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকাগুলো।


কুড়িগ্রাম জেলায় বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত হয়েছে নদী তীরবর্তী চরের নিম্নাঞ্চল। দ্রুত গতিতে পানি বাড়ার পাশাপাশি তীব্র রূপ নিয়েছে নদ-নদীর ভাঙন। বন্যা মোকাবেলায় যথাযথ পদক্ষেপ এবং পর্যাপ্ত ত্রাণের দাবি জানিয়েছেন দুর্গতরা।


এ ছাড়া আগামী ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম, সিলেট ও বরিশাল বিভাগের সুরমা, কুশিয়ারা, কংস, সোমেশ্বরী, ফেনী, সাঙ্গু, মাতামুহুরি, হালদাসহ প্রধান নদীগুলোর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

User Comments

  • জাতীয়