২৩ জানুয়ারি ২০২১ ১৭:৪২:১৭
logo
logo banner
HeadLine
টিকাদান শুরু ২৭ জানুয়ারি, প্রথম পাবেন একজন নার্স * সকলের জন্য নিরাপদ বাসস্থানের ব্যবস্থা করাই মুজিববর্ষের লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী * মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসন শুরু করতে অঙ্গীকারবদ্ধ : মিয়ানমার মন্ত্রী * 'মুজিব' বর্ষ উপলক্ষে ৬৬ হাজার ১৮৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে বাড়ি বিতরণ কাল, ফেব্রুয়ারীতে দেয়া হবে আরও ১ লাখ * ২২ জানুয়ারী : দেশে ২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ৬১৯, মৃত্যু ১৫, সুস্থ ৪৮৭ জন * ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যাট্টিক সিরিজ জয়, প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন * ভ্যাকসিন: পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার আলাপ কতটা সত্য? * ভারতের উপহারের ২০ লাখ ভ্যাকসিন গ্রহণ করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী * সরকারের সময়োচিত পদক্ষেপের ফলে কোভিডকালে বিশ্বমন্দা এড়াতে পেরেছে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী * নামতে পারে বৃষ্টি, বাড়বে শীতের প্রকোপ * ১৮ জানুয়ারী : দেশে নতুন শনাক্ত ৬৯৭, মারা গেছেন ১৬, সুস্থ ৭৩৬ জন * বছরের প্রথম অধিবেশন শুরু, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নির্মূলে আরও ঐক্যবদ্ধ হতে আহবান জানালেন রাষ্ট্রপতি * জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯' প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী * সন্দ্বীপে মোক্তাদের মাওলা সেলিমসহ দ্বিতীয় ধাপের ৬০ পৌর নির্বাচনে মেয়র হলেন যারা * বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে আবদুল কাদের মির্জা জয়ী *
     16,2021 Saturday at 20:09:19 Share

ভারতের দু'টি করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে

ভারতের দু'টি করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে

ভারত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আজ সিরাম ইনিস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া ও ভারত বায়োটেক লিমিটেড উৎপাদিত করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন ‘কোভিশিল্ড’ ও ‘কোভ্যাক্সিন’ এর চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে।
ভারতের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই) আজ সকালে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর বিরুদ্ধে অক্সফোর্ড-আস্ট্রা জেনেকা ও ভারত বায়োটেকের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্ত অনুমোদনের ঘোষণা দিয়েছে।
ডিসিজিআই ক্যাডিয়েল হেলথকেয়ার লিমিটেড-কে তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল প্রোটোকল পরিচালনা করার অনুমোদন দিয়েছে।
ইউনিয়ন হেলথ মিনিস্ট্রি আজ সকালে জানায়, এম/এস সিরাম ও এম/এস ভারত বায়োটেক ভ্যাকসিনকে দুটি ডোজ পরিচালনা করতে হবে। তিনটি ভ্যাকসিনের সবগুলোকেই ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সে. এ সংরক্ষণ করতে হবে।
শনিবার সন্ধ্যায়, সেন্ট্রাল ড্রাগস স্ট্যান্ডাড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশন (সিডিএসসিও)’র অধীনস্ত সাবজেক্ট এক্সপার্ট কমিটি (এসইসি) অক্সফোর্ড-আস্ট্রাসেনেকা’র ভ্যাকসিনটি জরুরি ব্যবহারের জন্য এবং সীমিতভাবে ব্যবহারের জন্য কোভ্যাক্সিন-কে অনুমোদন দিয়েছে।
পালমোনোলোজি, রোগ-প্রতিরোধ বিদ্যা, মাইক্রোবায়োলোজি, ফার্মাকোলোজি, ও অভ্যন্তরীণ ওষুধ বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে সাবজেক্ট এক্সপার্ট কমিটি গঠিত।
ডিসিজিআই’র চূড়ান্ত অনুমোদন পাওয়ায় টিকাদান কর্মসূচি যে কোন সময় শুরু হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের প্রধান ভি জি সোমানি।
ডিসিজিআই’র এই ঘোষণার পরপরই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘এটা ভারতীয়দের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয় যে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন প্রাপ্ত দু’টি ভ্যাকসিন ভারতে উৎপাদিত হচ্ছে।’
তিনি একটি ‘আত্মনির্ভরশীল ভারত’ বিনির্মানের স্বপ্ন পূরণের জন্য বিজ্ঞানীদের ধন্যবাদ জানান।
কোভ্যাক্সিন ভারতের নিজস্ব উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (্আইসিএমআর)-এর সহযোগিতায় ভারত বায়োটেক এটি আবিষ্কার করেছে।
ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া’র ভি জি সোমানি দাবি করেছেন যে হালকা জ্বর, ব্যথা ও অ্যালার্জির মতো পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া হলেও ভ্যাকসিনগুলো ১১০ ভাগ নিরাপদ। আর এই সব পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া যে কোন ভ্যাকসিনেই হয়।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমরা এমন কিছু কখনোই অনুমোদন দিব না, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য নিরাপদ নয়। জনস্বাস্থ্যের জন্য সামান্যতম ঝুঁকি হলেও আমরা অনুমোদন দেই না। তবে সব ভ্যাকসিনেই জ্বর, ব্যাথা ও অ্যালার্জি’র মতো পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া থাকে।’
মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ভারত দেশের ১২৫টি জেলায় টিকাদান কর্মসূচি শুরু করতে যাচ্ছে। দুর্গম গ্রাম ও শহর এলাকাগুলোতে পর্যাপ্ত টিকাদান কর্মসূচি চালানো হবে।
দেশটি কোভিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচি চালানোর জন্য প্রস্তুত রয়েছে। সরকার করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধের অংশ হিসেবে ৩০ কোটি মানুষকে টিকা দেয়ার পরিকল্পনা করছে। আগামী ছয় থেকে আট মাসের মধ্যে এই অভিযান সম্পন্ন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সম্মুখ-যোদ্ধাদের টিকা প্রদান করেই এই কর্মসূচি শুরু করা হবে।
ন্যাশনাল এক্সপার্ট গ্রপ অব ভ্যাকসিন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর কোভিড-১৯ (এনইজিবিএসি) জানায়, সর্বপ্রথম করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সম্মুখসারির যোদ্ধা সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের প্রায় ১ কোটি স্বাস্থ্যকর্মী, অন্যান্য সম্মুখ যোদ্ধা ও ৫০ বছরের বেশি বয়স্কদের ২ কোটি টিকা দেয়া হবে।
পুলিশ বিভাগ, সশস্ত্র বাহিনী, হোম গার্ড, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও বেসামরিক সংস্থা, কারারক্ষী, পৌরসভা কর্মী ও রাজস্ব কর্মকর্তাদের মাঝে এই দুই কোটি টিকা প্রদান করা হবে।বাসস।

User Comments

  • আন্তর্জাতিক